বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারত্বের সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্র গর্বিতঃ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ ডেস্কঃ
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন আগামী দিনগুলোতে বাংলাদেসের সম্পর্ক আরও গভীর করার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন,বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারত্বের সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্র গর্বিত ।

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে রোববার যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের জনগণকে উষ্ণ অভিনন্দন জানিয়ে দেয়া এক বার্তায় ব্লিংকেন এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বার্তায় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ৫৩তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের প্রাক্কালে বাংলাদেশ অনেক কারণে গর্ব করতে পারে। দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতি, ক্রমবর্ধমান সুশিক্ষিত জনশক্তি এবং একটি গতিশীল যুব জনসংখ্যার সুবাদে বাংলাদেশ দ্রুতই আঞ্চলিক নেতা হয়ে উঠছে। (মিয়ানমারে) গণহত্যা থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের উদারভাবে স্বাগত জানিয়ে আপনারা বিপদাপন্ন শরণার্থীদের প্রতি মানবিক প্রতিশ্রুতি দেখিয়েছেন।

জলবায়ু সংকটে অভিযোজন কৌশল তৈরির মাধ্যমে পরিবেশ রক্ষা ও জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতা জোরদারের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ নেতৃত্ব দেখিয়েছে বলেও বার্তায় উল্লেখ করেন ব্লিংকেন।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারত্বের জন্য এবং এর মধ্য দিয়ে গত পাঁচ দশকে দুই দেশের যে অর্জন, তাতে যুক্তরাষ্ট্র গর্বিত। কোভিড-১৯ মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা এবং একটি অবাধ ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল গড়তে সম্প্রতি আমরা একসঙ্গে বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি। অনলাইন।

ব্লিংকেন বলেন, সবার জন্য উন্মুক্ত, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের সমর্থনে আমরা আপনাদের সঙ্গে কাজ করার বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। গণতান্ত্রিক রীতিনীতির প্রতি প্রতিশ্রুতি, সুশাসন, মানবাধিকার এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা-সবই উন্নয়নশীল, স্থিতিশীল ও সমৃদ্ধ সমাজের বৈশিষ্ট্য। আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ তার বিশাল সম্ভাবনা অর্জন করবে।